শিরোনাম :
সন্দ্বীপে যৌন হয়রানি প্রতিরোধে সচেতনতামূলক পথসভা  মেক্সিকোর বিপক্ষে জয়ের ছন্দ ধরে রাখল আর্জেন্টিনা মীরসরাইয়ে ইতিহাস গ্রন্থ আলোচনা অনুষ্ঠান সম্পন্ন শিশু বাচ্চা আয়াতকে ৬ টুকরা করে নদীতে ফেলে দেয় সাবেক ভাড়াটিয়া প্রধান আসামি আবির আলী গ্রেফতার শিশু আয়াতকে অপহরণের পর ৬ টুকরো করে ফেলে দেয় সাগরে চট্টগ্রামে আ’লীগের জনসভা জনসমুদ্রে পরিণত করতে হবে: মোঃ শেখ সেলিম চট্রগ্রামে আ’লীগের জনসভা জনসমুদ্রে পরিণত হবেঃ আবুল হোসেন বাবুল কিভাবে বাড়ি বা প্রতিষ্ঠানের নাম ও ঠিকানা গুগল ম্যাপে যুক্ত করবেন মিরসরাইয়ে সন্ত্রাসী হামলায় আহত নুর আলম নিহত এলাকার মানুষের ক্ষোভ ২৮ নভেম্বর এসএসসি’র ফল প্রকাশ করা হবে

মহানবী (সা.) গোটা সৃষ্টি জগতের জন্য রহমত -অধ্যক্ষ এম সোলাইমান কাসেমী

মহিউদ্দিন ওসমানীঃ-লোহাগাড়া উপজেলার বড়হাতিয়া ইউনিয়নের ঐতিহ্যবাহী ১২ দিনব্যাপী ৩২তম মিলাদুন্নবী (সা.) মাহফিলের দশম দিবসে ইসলামী গবেষক অধ্যক্ষ মাওলানা এম সোলাইমান কাসেমী বলেন, মহানবী (সা.) গোটা সৃষ্টি জগতের জন্য রহমত। তিনি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের জীবনাদর্শ মানবজীবনের সকল ক্ষেত্রে বাস্তবায়ন করার আহ্বান জানান। পদুয়া আইনুল উলূম দারুচ্ছুন্নাহ কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা আ ন ম নোমান’র সভাপতিত্বে ও মাহফিল কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক ফখরুল ইসলাম সাঈদীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মিলাদুন্নবী (সা.) মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট সমাজকর্মী ও নিউজটিভিবিডি ডটনেট’র চেয়ারম্যান মোহাম্মদ নুরুচ্ছফা। মাহফিলে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বড়হাতিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোহাম্মদ সাজেদুর রহমান চৌধুরী দুলাল। প্রধান ওয়ায়েজের আলোচনা পেশ করেন পিএইচ.ডি গবেষক হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মুহিউদ্দিন মাহবুব। বিশেষ ওয়ায়েজের আলোচনা পেশ করেন ইসলামী আলোচক মাওলানা মোহাম্মদ মুসলেহ উদ্দিন ফারুকী। বক্তব্য রাখেন মাহফিল পরিচালনা কমিটির সভাপতি মাহবুবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দীন, পরিচালক মাওলানা মহিউদ্দিন হেলালী, মাওলানা শাহাদাত হোসাইন, মাওলানা শাহ মনছুর, জালাল সওদাগর, কুতুবউদ্দিন, সৈয়দ নুর প্রমুখ। মাহফিলের প্রধান অতিথি বিশিষ্ট সমাজকর্মী ও নিউজটিভিবিডি ডটনেট’র চেয়ারম্যান মোহাম্মদ নুরুচ্ছফা বলেন, মহানবী (সা.) শিশুকাল থেকে ছিলেন শান্ত, নম্রভদ্র ও সৎচরিত্রবান। সত্যবাদিতার কারণে সে সময়ের লোকেরা তাঁকে আল-আমীন উপাদিতে ভূষিত করেছিলেন। যুবককালে তিনি সমাজের কল্যাণে ব্রতী ছিলেন। সেই সাথে তিনি সবাইকে মা-বাবার খেদমত করার অনুরোধ করেন।

প্রধান ওয়ায়েজ হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মুহিউদ্দিন মাহবুব বলেন, সমসাময়িকদের সঙ্গী বানিয়ে তৎকালীন সময়ে ‘হিলফুল ফুজুল’ নামক একটি সমাজকল্যাণ সংস্থা গঠন করেছিলেন। এই সংস্থার মাধ্যমে সমাজে শন্তি প্রতিষ্ঠায় আত্মনিয়োগ করেছিলেন। ৪০ বছর বয়সে রাসূল (সা.) আল্লাহর পক্ষ থেকে নবুওয়াত প্রাপ্ত হন। নবুওয়াত প্রাপ্তির পর তিনি মানুষকে কালেমার দাওয়াত দিতে লাগলেন। সর্বপ্রথম পরিজন ও নিকটজনদের মাঝে ঘোষণা করলেন, “লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ।” অর্থাৎ- “আল্লাহ তায়ালা ছাড়া আর কোন মাবুদ নেই, হযরত মুহাম্মদ (সা.) আল্লাহর রাসূল।” মানুষকে বুঝালেন, এই কথাটি মুখে স্বীকার করা, অন্তরে বিশ্বাস করা এবং আল্লাহ তায়ালার বিধি-নিষেধ মেনে চলার মধ্যেই ইহ-পরকালীন সুখ-শান্তি নিহিত রয়েছে। এভাবে কালেমার বাণী প্রচার করে মানুষকে দ্বীনের পথে আহবান করেন। তিনি আরও বলেন, ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় মহানবী (সা.) বিশ্ববাসীর জন্য অনন্য দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবেন।

(Visited 6 times, 1 visits today)