শিরোনাম :
মীরসরাইয়ে ট্রাক সহ চোরাই গরু ও ২ চোর আটক জেল থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকসহ জনপ্রতিনিধিকে প্রাণনাশের হুমকি! রাতের মধ্যে গ্রেপ্তারকৃত নাবিকদের মুক্তি না দিলে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট : শ্রমিক নেতা বাহারুল ইসলাম লক্ষ্মীপুরে শিয়ালের মাংস বিক্রির দায়ে একজনের কারাদন্ড রামগঞ্জে পুলিশের বিশেষ অভিযানে ৩ কেজি গাঁজাসহ মাদক কারবারি গ্রেপ্তার মোংলা ঘসিয়াখালী চ্যানেলে জাহাজ দুর্ঘটনায় একজন নিহত ওসি প্রদীপের স্ত্রী চুমকি শ্রীঘরে লক্ষ্মীপুরে আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত রাঙ্গুনিয়ায় বেতাগী ইউনিয়ন আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত ৩ লাখ ১০ হাজার পিস ইয়াবাসহ ১০ ব্যক্তিকে আটক করেছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী

পেকুয়ার আলোচিত ডাকাত জিয়াবুল ও আজিজ RAB-7 এর হাতে আটক

ইঞ্জিনিয়ার হাফিজুর রহমান খান, স্টাফ রিপোর্টার: পেকুয়া উজানটিয়ার কুখ্যাত জ্বলদস্যুর আজিজ ডাকাতের ভাই কথিত হাইব্রিড আওয়ামীলীগ নেতা ভূমিদস্যু জিয়াবুলদের আতংক কক্সবাজারের বাঁশখালী, কুতুবদিয়া, মহেশখালী, টেকনাফ উপকূলে পেকুয়া উপজেলার উজানটিয়া ইউনিয়নের করিয়ারদ্বিয়ার (ঢউয়াখালীর ) অনেক মামলার ওয়ারেন্ট আসামী কুখ্যাত জ্বলদস্যুর কমান্ডার আজিজ ডাকাতের নির্মম নির্যাতনে অতিষ্ট এলাকাবাসি ও ঐপারে মহেশখালীর মাতারবাড়ী খন্দারবিল উপকূলের মানুষকে দিন দুপুরে ওপেন গুলাগুলি করে বলে স্থানীয়রা জানান। উপকূল হওয়াতে প্রশাসন এতদূরে নজর না দেওয়ায় আজিজ ডাকাতের একছত্র আধিপত্য। আতংকে রাতদিন যাপন করছেন স্থানীয় উপকূলের জেলেরা। জীবন মরণ লড়াই করে কোহেলীয়া নদীতে মাছ আহরণ করে স্থানীয়রা।

মাতারবাড়ী-ঢউয়াখালীর মধ্যে নদীতে মাছের জাল বসাতে তার অনুমতি লাগে। স্থানীয় চেয়ারম্যান মেম্বার এর সাথে সম্প্রিক্ত হয়ে একক রাজ্যে অধিপতি পরিণত হয়েছে এ জলদস্যু কমান্ডার আজিজ ডাকাত। উপরে আছে তার ভাই উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রভাবশালী নেতা জিয়াবুল হক জিকু। তার খুটির জুর যেহেতু অনেক দূর সে ৫০০ একর জায়গা প্যারাবন কেটে চিংড়ি প্রজেক্ট করে। এরমধ্যে ফরেস্ট ডিপার্টমেন্ট মহেশখাীতে একের অধিক মামলা আছে। খবর নিয়ে জানা যয় তাদের সাথে বহুবার গুলাগুলি হয়েছে ফরেস্ট পুলিশের সাথে। তার থেকে এত আপডেট অস্ত্র প্রশাসনের অস্ত্র তার সাথে হার মানে।অস্ত্র ও ইয়াবা আমাদানি থেকে শুরু সব অপকর্মের মূল এই জায়গায় আজিজ ডাকাতের আস্তানায়। ওজানটিয়া থেকে দেশের বিভিন্ন জায়গায় অস্ত্র আমদানিও হয় বলে বিভিন্ন মাধ্যমের খবর আছে।

আজিজ ডাকাতের ভাই পেকুয়া উপজেলার আওয়ামীলীগের হাইব্রিড প্রভাবশালী নেতা জিয়াবুল হক জিকু দলের প্রভাব খাটিয়ে স্থানীয় অসহায় ব্যক্তির উপকূলের অনেক খতিয়ান ভোক্ত জমি দখল নিয়ে করে খাচ্ছেন উপকূলের নদী চর ও পেরাবন উঝাড় করে দখল।

বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, তার অস্ত্রের সামনে কেউ প্রতিবাদ করে না। স্থানীয় মেম্বার চেয়ারম্যানকে কমিশন দিয়ে কাজ করে বলে জানা যায়। একাধিক মামলাও রয়েছে দু ভাইয়ে নামে। কিন্তু আওয়ামীলীগ পরিচয় দিয়ে সবসময় পার পেয়ে যাচ্ছে ভূমিদস্যু জিয়াবুল। জ্বলদস্যুর কমান্ডার আজিজ ডাকাত যেহেতু সবসময় উপকূল বিরাজ করে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করতে গেলে পালিয়ে যায় বলে পুলিশ সূত্রে জানা যায়। গত ১২ মে দিবাগত রাতে RAB-7 এর বিশেষ অভিযানে স্থানীয় মেম্বারের ঘর ঘেরাও করে আজিজ ডাকাতকে গ্রেপ্তার করে; একই রাতে চকরিয়া চৌমূহনীর জিয়াবুলের বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে তাকে।

উল্লেখ্য যে, কোহেলীয়া নদীর ওজানটিয়ার ঢউয়াখালী-মাতারবাড়ী নদীতে উভয় এলাকার মানুষ বিভিন্ন ধরনের জ্বাল বসিয়ে মাছ আহরণ করে সংসার চলায়। গত ১২-১০-১৯ইংরেজি তারিখে মাতারবাড়ীর খন্দারবিল এলাকার ইলিয়াছ (৪০) নামের জেলে নদীতে জাল বসাইতে গেলে ৫০% মাছ আজিজ ডাকাতকে দিতে হবে এ শর্তে জাল বসাইতে দেয়। চতুর্থ বারে জাল বসাইতে গেলে ইলিয়াছ ৫০% মাছ দিবে না বলে সাফ জানিয়ে দেয়। এ কথা বলাতে সাথে সাথে ইলিয়াছকে ওঠিয়ে নিয়ে যায় আজিজ ডাকাতের লোকেরা তাকে বেধে নিয়ে যায় আস্তানায় সেখানে শারীরকভাবে নির্যাতন করে। ধরালো চুরি দিয়ে তার পায়ের রগ কেটে দেয় হাতে ও পিটে ধরালো ধায়ের খোপ দিয়ে জখম করে মাতারবাড়ীর উপকূলে ফেলে দিয়ে যায়। এলাকার লোকজন তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়েগিয়ে চিকিৎসা করায় ২মাস পর সুস্থ হয়ে বাড়ী এসে থানায় জিডি করে।

০৬-০৪-২০ রোজ বুধবার রাতে জাল বসাইতে গেলে ০৭-০৪-২০ বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ী না আসলে এলাকায় মাইকিং করে ইলিয়াছের পরিবার। এর আধাঘন্টা পর ঢউয়াখালীর উপকন্ঠে তার লাশ পানিতে ভাসতে দেখে এলাকার লোক জন পুলিশকে খবর দেয়।পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ নিতে চাইলে ইলিয়াছ এর স্ত্রী বলে, আমি করো জন্য মামলা করবনা মামলা করলে এটি কখন শেষ হয় তাও জানিনা।আমরা গরীব আমাদেরকে এতকষ্ট দিবেননা স্যার লাশ আমাদের দিয়ে যান।

একাধিক স্থানীয় লোকের সাথে কথা বললে তারা আমাদের জানান, এ মৃত্যুতে ঢউয়াখালীর মাতারবাড়ীর উপকন্ঠের জেলেরা আতংকে আছে। সবাই বলতেছে আমাদের একমাত্র আয়ের স্থান নদী থেকে মাছ আহরণ করা। এখন আমরা মাছ কিভাবে আহরণ করব ? পরিবার কিভাবে চলাব? আমরা প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ করছি আমাদের মাছ আহরণ করার জন্য সুযোগ করে দিন ও মৃত ব্যক্তির বিচার সঠিক তদন্তপুর্বক হোক সেটা চাই। সটিক বিচার চাই ৷ কুখ্যাত আজিজ ডাকাতকে গ্রেপ্তার পুর্বক আইনের আওতায় এনে শাস্তি দেওয়া হোক। এটাই আমাদের কামনা।

এরকম দুর্ধর্ষ ডাকাতকে গ্রেফতার করায় RAB-7 কে ধন্যবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় অনেক ভোক্তভুগী ও স্থানীয়রা।

(Visited 64 times, 1 visits today)