শিরোনাম :
বিজিএমই সহ-সভাপতি রাকিবুল আলম চৌধুরী নারায়ণহাট মাদ্রাসার সভাপতি নির্বাচিত সিলেট সুনামগঞ্জ বানভাসীদের মাঝে ফেনী জেলা ‘নিজের বলার মত গল্প ফাউন্ডেশন’ এর ত্রাণ বিতরণ স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে চবি কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত পদ্মা সেতু উদ্বোধন || প্রধানমন্ত্রীকে চট্টগ্রাম ট্রিবিউন পরিবারের অভিনন্দন মানবতার নায়ক আবদুস সামাদ স্যার, সবার জন্য অনুসরনীয় রামগঞ্জে খালের উপর থাকা নির্মাণাধীন দুইটি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছে স্বামী-স্ত্রী মাদক কারবারী, বিশেষ অভিযানে ৫মাদক কারবারী লোহাগাড়ার শ্রীঘরে, ইয়াবা জব্দ বান্দরবানে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন আজ আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী যান্ত্রিক এবং মানবিক ত্রুটি দূর করতে পারলে ইভিএম গ্রহণযোগ্য হবে

মেসির ৩০ নম্বর জার্সি বিক্রি শেষ ৩০ মিনিটেই

জার্সি তোলা হয় পিএসজির অনলাইনে। শুরু থেকেই বিক্রির ধুম পড়ে যায়। শেষ হতে লেগেছে আধা ঘণ্টা মাত্র।

তবে মেসির জার্সির জন্য অবশ্য একটু বেশি মূল্য পরিশোধ করতে হয় ভক্তদের। তাও বাধা মানেনি। আটকে রাখা যায়নি ভক্তদের। অন্যান্য খেলোয়াড়দের জার্সি মূল্যের চেয়ে দেড় গুণ বেশি দামেও এ জার্সি কিনতে কৃপণতা করেননি ভক্তরা। প্রতিটি জার্সি জন্য মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫৭.৯৯ ইউরো। বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৫ হাজার ৭২০ টাকা।

অথচ স্বাভাবিকভাবে পিএসজির খেলোয়াড়দের জার্সি মূল্য ১০৭.৯৯ ইউরো। বাংলাদেশি মুদ্রায় ১০ হাজার ৭৪৫ টাকা। নেইমার, কিলিয়ান এমবাপে কিংবা কিছুদিন আগেই যোগ দেওয়া সের্জিও রামোসদের জার্সি মূল্যও তাই। তবে গোলরক্ষকদের জার্সি মূল্য ছিল কিছুটা বেশি। ১১৭.৯৯ ইউরো বা বাংলাদেশি মুদ্রায় ১১ হাজার ৭৪০ টাকা।

পিএসজিতে মেসি কতো নম্বর জার্সি পরে খেলবেন এ নিয়ে ছিল না জল্পনা কল্পনা। ক্যারিয়ারের বেশির ভাগ সময় বার্সায় ১০ নম্বর পরে খেলেছেন। কিন্তু পিএসজিতে এ জার্সি পরেন নেইমার। যদিও মেসিকে তার জার্সি পরে খেলার প্রস্তাব দিয়েছিলেন নেইমার। মেসি অবশ্য সে প্রস্তাব সবিনয়ে ফিরিয়ে দিয়েছেন।

বার্সায় ২০০৪/০৫ মৌসুমে নিজের ক্যারিয়ারের শুরুটা ৩০ নম্বর জার্সি পরে খেলেছিলেন মেসি। ২০০৬/০৭ মৌসুমে খেলেছেন ১৯ নম্বর জার্সি পরে। পরে ২০০৮/০৯ মৌসুমে রোনালদিনহো ক্লাব ছাড়ার পর ১০ নম্বর জার্সি পান মেসি। তখন থেকেই বার্সায় এ জার্সি নিয়মিত হয়ে যায় তার জন্য।

এবার যেন আবার সেই ক্যারিয়ারের শুরুতে চলে গেলেন মেসি। পিএসজিতে খেলবেন ৩০ নম্বর জার্সি পরে। এছাড়া বিকল্প ছিল ১৯ নম্বর জার্সি পরে খেলারও। কিন্তু সেখানেও কিছুটা সমস্যা তৈরি হয়। কারণ পিএসজিতে এ জার্সি পরে খেলেন পাবলো সারাবিয়া। তাই ৩০ নম্বর নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় মেসিকে।

  1. অবশ্য মেসির ৩০ নম্বর জার্সি পরে খেলা নিয়েও সমস্যা ছিল লা পার্সিয়ানদের। লিগ ওয়ানের নিয়ম অনুযায়ী ৩০ নম্বর জার্সিটা নির্ধারিত থাকে গোলরক্ষকদের জন্য। মেসির জন্য লিগ কর্তৃপক্ষের কাছে বিশেষ অনুমতি চেয়েছিল পিএসজি। ইতিবাচক সাড়া পাওয়ার এ জার্সি দেওয়া হয়েছে মেসিকে।

(Visited 20 times, 1 visits today)