শিরোনাম :
চৌদ্দগ্রামের কাশিনগরে অভিভাবক সমাবেশ ও পুরস্কার বিতরণ – দেশ সেরা অনলাইন পারফর্মার হলেন কিশোরগঞ্জ এর শিক্ষক নাজমুল হক বটন কান্তি বড়ুয়া বাবেশিকফো এর চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সহ-সভাপতি নির্বাচিত বাবেশিকফো চট্টগ্রাম জেলা কমিটির যুগ্ম-সাধারণ, রাঙ্গুনিয়ার ইকবাল হোসেন এনামুল হক বাবেশিকফো এর চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি নির্বাচিত বাবেশিকফো এর চট্টগ্রাম জেলা কমিটি ঘোষনা, সভাপতি শরীফুল ইসলাম সম্পাদক মোখলেছুর রহমান জেদ্দায় লোহাগাড়া প্রবাসী সমিতি কর্তৃক ডঃ আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী (এমপি) সংবর্ধিত ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এর প্রতি খোলা চিঠি ফটিকছড়ির হারুয়ালছড়ি দরবারে জশনে জুলুছের প্রস্তুতি ৬ষ্ঠ শ্রেণি থেকে ৯ম শ্রেণির বার্ষিক ও ১০ম শ্রেণির নির্বাচনী পরীক্ষা সংক্রান্ত মাউশির পরিপত্র জারি ,পরীক্ষা হবে তিন বিষয়

করোনায় ১ দিনে ৫৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২১৭৭ জন

ছবি -চট্টগ্রাম ট্রিবিউন
ছবি -চট্টগ্রাম ট্রিবিউন

চট্টগ্রাম মিরর ডেস্ক: করোনায় গত ২৪ ঘন্টায় বা এক দিনে ৫৭ জনের মৃত্যু হয়েছে আর নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ১৭৭ জন। আজ শুক্রবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

গত ২৪ ঘণ্টায় (গতকাল সকাল ৮টা থেকে আজ সকাল ৮টা পর্যন্ত) নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ২১ হাজার ৪৬ জনের। নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় রোগী শনাক্তের হার ১০ দশমিক ৩৪ শতাংশ।
এ পর্যন্ত দেশে মোট ৭ লাখ ৫৯ হাজার ১৩২ জনের করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। তাঁদের মধ্যে মারা গেছেন ১১ হাজার ৪৫০ জন। মোট সুস্থ হয়েছেন ৬ লাখ ৮১ হাজার ৪২৬ জন।
গতকাল বৃহস্পতিবার করোনায় ৮৮ জনের মৃত্যু হয়েছিল এবং ২ হাজার ৩৪১ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছিল। গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা শনাক্তের কথা জানায় সরকার। গত বছরের মে মাসের মাঝামাঝি থেকে সংক্রমণ বাড়তে শুরু করে। আগস্টের তৃতীয় সপ্তাহ পর্যন্ত শনাক্তের হার ২০ শতাংশের ওপরে ছিল। এরপর থেকে শনাক্তের হার কমতে শুরু করে।
২০২০ সালের জুন থেকে আগস্ট করোনার সংক্রমণ ছিল তীব্র । নভেম্বর-ডিসেম্বরে কিছুটা বাড়লেও বাকি সময় সংক্রমণ নিম্নমুখী ছিল। চলতি ২০২১ সালের মার্চে শুরু হয়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। প্রথম ঢেউয়ের চেয়ে এবার সংক্রমণ বেশি তীব্র। মধ্যে কয়েক মাস ধরে শনাক্তের চেয়ে সুস্থ বেশি হওয়ায় দেশে চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা কমে আসছিল। কিন্তু মার্চ থেকে চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যাও আবার বাড়তে শুরু করেছে।
কোনো দেশে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আছে কি না, তা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ঠিক করা কিছু নির্দেশক থেকে বোঝা যায়। তার একটি হলো রোগী শনাক্তের হার। টানা দুই সপ্তাহের বেশি রোগী শনাক্তের হার ৫ শতাংশের নিচে থাকলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে বলে ধরা যায়। এ বছর ফেব্রুয়ারির শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত শনাক্তের হার ৩ শতাংশের নিচে ছিল। দুই মাস পর গত ১০ মার্চ দৈনিক শনাক্ত আবার হাজার ছাড়ায়। এরপর দৈনিক শনাক্ত বেড়েই চলছে। তবে গত কয়েকটিন মৃত্যু ও সনাক্তের হার নিম্নমুখী।
(Visited 13 times, 1 visits today)