শিরোনাম :
ওমর ফারুক খাঁন তৃতীয় বারের মত দাগনভঞার মেয়র নির্বাচিত নৌকার প্রার্থীর সমর্থনে অধ্যাপক ড. আবুল আলা মোহাম্মদ হোছামুদ্দিনের নেতৃত্বে স্বাশিপের গণসংযোগ নৌকার প্রার্থীর সমর্থনে অধ্যাপক ড. আবুল আলা মোহাম্মদ হোছামুদ্দিনের নেতৃত্বে স্বাশিপের গণসংযোগ, ষাট পৌরসভায় শান্তিপূর্ণ ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে: ইসি সচিব একুশ সালের মধ্যে সকলের জন্য ইন্টারনেট নিশ্চিত করা হবে: পলক যদি মানুষ ভোট দিতে পারে“চট্টগ্রামে ভোট বিপ্লব ঘটবে -ড.শাহাদাৎ” দক্ষিণ হালিশহর ৩৯নম্বর ওয়ার্ডে ধানের শীষের গনসংযোগে মেয়র প্রার্থী ডাঃ শাহাদাৎ হোসেন আগামীর নগর পিতার নিকট প্রত্যাশা : সমৃদ্ধ এই বন্দর নগরীকে বাণিজ্যিক রাজধানী হিসাবে বাস্তবায়নে তিনি যথাযথ পদক্ষেপ নিবে জনগণের বাসস্থান নিশ্চিতে বিনাসুদে, শর্তবিহীন ঋণ সুবিধা দিন চসিক এর চকবাজার ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় ওয়াহেদ মুরাদের গণসংযোগ করোনা সংকটে আবারও বাড়ল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি

বাংলাদেশি মুদ্রা ’টাকা’ র ইতিহাস

মহিউদ্দিন ওসমানী, চট্টগ্রাম ট্রিবিউন: টাকা(মুদ্রা প্রতীক: ৳; ব্যাংক কোড: BDT) হল বাংলাদেশের মুদ্রা। বাংলাদেশের জন্ম ১৯৭১ সালে হলেও শুরুটা ছিল ১৯৪৭ সালে পূর্ব পাকিস্তান হিসেবে। তখন দেশে পাকিস্তান রুপির প্রচলন ছিল, যেটিকে কাগজে–কলমে টাকাও বলা হতো। মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে বাঙালি জাতীয়তাবাদীরা বেসরকারিভাবে পাকিস্তানি টাকার একপাশে ‘বাংলা দেশ’ এবং অপর পাশে ‘Bangla Desh’ লেখা রাবার স্ট্যাম্প ব্যবহার করতেন।

১৯৭১ সালের ৮ জুন পাকিস্তান সরকার এই রাবার স্ট্যাম্প যুক্ত টাকাকে অবৈধ এবং মূল্যহীন ঘোষণা করে। জানা যায় এরপরেও ১৯৭৩ সালের ৩রা মার্চ পর্যন্ত এই রাবার স্ট্যাম্পযুক্ত পাকিস্তানি টাকা চলেছিল সারা দেশে।

১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হবার পরে নতুন মুদ্রা প্রচলনের ঘোষণা দেয়া হয়। তাতে সময় লেগেছিল তিন মাসের মতো। তাই ঐ সময়ে পাকিস্তানি রুপিই ব্যবহৃত হতো। ১৯৭২ সালের ৪ঠা মার্চ বাংলাদেশি কারেন্সিকে ‘টাকা’ হিসেবে ঘোষণা দেয়া হয়। সূত্র: ইন্টারনেট সিটি০১/এমওসমানী/০১

(Visited 31 times, 1 visits today)